বিভিন্ন ধর্মে রোজা বা উপবাসের বিধান

বিশেষ নিবন্ধ, সংকলনে- আসিফ রেজা আনসারীঃ আজ থেকেই ইসলামী ক্যালেন্ডার অনুযায়ী রমজান মাস শুরু। প্রসঙ্গত আরবি ক্যালেন্ডার চন্দ্র মাস অনুসারে গণনা করা হয়। রমজান মানেই রোজার মাস। একমাস যাবৎ মুসলিমরা রোজা রাখেন৷ কিন্তু শুধু কি মুসলিমরা রোজা? না অন্যান্য ধর্মেও এমন উপবাসের বিধান আছে৷ আসুন পরিচিত হই কয়েকটি প্রধানতম ধর্মে উপবাসের সাথে...

ইসলাম ধর্মঃ-
ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী একমাস ধরে রোজা রাখার বিধান। প্রসঙ্গত রমজান মাসের ২৯ বা ৩০ দিন (চাঁদের গণনা এমনই হয়) রোজা রাখেন মুসলিমরা৷ এছাড়াও পবিত্র শবে বরাত বা রমজানের পূর্ববর্তী মাসের ১৫ তারিখ শবে মেরাজ সহ প্রত্যেক চন্দ্র মাসের ১৪ /১৫/১৬ যেকোনো দুই দিন রোজা রাখার বিধান আছে৷ রোজার সময় মুসলিমরা ঊষা কাল বা ফজর থেকে সূর্যাস্ত বা মাগরিব পর্যন্ত পানাহার ও যৌনকর্ম থেকে নিজেদের বিরত রাখেন৷ বলা হয় আত্মশুদ্ধির জন্য রোজা।

ইহুদি ধর্মঃ-
ইয়োম কিপ্পুর বা প্রায়শ্চিত্তের দিন হলো ইহুদি ধর্মের সবচেয়ে পবিত্র দিন৷ ইহুদি ক্যালেন্ডারের তেশরেই মাসের ১০ তারিখ এই রোজা রাখেন তারা। এদিন ২৫ ঘন্টা ধরে উপবাস ও প্রার্থনার মাধ্যমে দিনটি পালন করে থাকেন ইহুদি ধর্মের অনুসারীরা৷ এছাড়া আরো অন্যান্য ছয়দিন রোজা রাখার বিধান আছে ইহুদি ধর্মে৷

বৌদ্ধ ধর্মঃ-
অন্যান্য ধর্মের মতো বৌদ্ধ ধর্মেও উপবাসের বিধান আছে৷ প্রসঙ্গত তারা পূর্ণিমার দিনগুলোতে ও অন্য ধর্মীয় উৎসবের দিনগুলোতে উপবাস করে থাকেন।

খ্রিস্টান ধর্মঃ-
ইসলাম ইহুদি ও খ্রীষ্টান ধর্মের মিল আছে। তারা সকলেই সিমেটিক ধর্মের অন্তর্গত। খ্রীষ্টানরা অ্যাশ ওয়েনেসডে ও গুড ফ্রাইডে’র দিন রোজা বা উপবাস পালন করে৷ এছাড়াও ইস্টার সানডে’র আগের প্রায় ৪০ দিন তাঁরা শুক্রবারগুলোতে মাংস খাওয়া থেকে বিরত থাকেন৷

হিন্দু ধর্মঃ-
হিন্দু ধর্মেও রোজা বা উপবাসের বিধান আছে। বেদের বিধান যে, চন্দ্রমাসের একাদশীর দিন পুরোটাই উপবাস করতে হবে৷ শুধু জলপান করা যাবে৷ আহার করা নিষিদ্ধ। সে হিসাবে মাসে দু’বার এই উপবাসের রেওয়াজ আছে৷ সাধারণত মেয়েরা উপবাস পালন করেন সন্তান সহ অন্যান্যদের মঙ্গল কামনা করে।

মর্মনঃ-
খ্রিস্টীয় সংস্কারবাদী ল্যাটার ডে সেইন্ট ম্যুভমেন্টের সদস্যদের বলা হয় মর্মন৷ তাঁরাও প্রতি মাসের প্রথম রোববার রোজা রাখেন৷ অন্যদিকে বাহা’ই নামে একটি গোষ্ঠী রোজা রাখেন। প্রসঙ্গত ইরান ও মধ্যপ্রাচ্যে বাহাউল্লাহ প্রতিষ্ঠিত ধর্ম বাহা-র অনুসারীরা তাঁদের পঞ্জিকার ১৯তম মাসে (২ থেকে ২০ মার্চ পর্যন্ত) রোজা রাখেন৷ এছাড়াও ইয়াজিদি নামে আরেকটি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকজন
মধ্যপ্রাচ্যে যাদের মূলত বসবাস তারও ডিসেম্বর মাসে তিন দিন রোজা রাখেন৷
Photo credit: cultural awareness International

Post a Comment

0 Comments